ছেলের মৃত্যুর খবর শুনে মারা গেলেন মাও

ফরিদপুর শহরের আলীপুরে ছেলের মৃত্যুর খবর ও শোক সইতে না পেরে মারা গেলেন মাও। এ ঘটনায় বিষাদের ছায়া নেমে এসেছে ওই পরিবারে।

শনিবার (১৮ জুন) সকালে এ ঘটনা ঘটে। এরপর বাদ জোহর মা ও ছেলের জানাজা শেষে তাদের আলিপুর গোরস্থানে দাফন করা হয়।

স্থানীয়রা জানান, শহরের আলীপুরের বাসিন্দা মরহুম আব্দুল খালেক মিয়ার ছেলে ড. মো. আনোয়ারুল ইসলাম রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের ফার্মেসি অনুষদের ডিন ছিলেন। সম্প্রতি তিনি ব্রেইন স্টোক করেন।

তিনি ঢাকার একটি বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন। সেখানে শুক্রবার দুপুরে হাসপাতালে তিনি মারা যান। এখবরটি তার বৃদ্ধা মাকে তাৎক্ষণিক জানানো হয়নি।

তবে শনিবার সকালে দাফনের জন্য ঢাকা থেকে ডা. আনোয়ারুল ইসলামের মরদেহ ফরিদপুরে আনার সময় সকাল সাতটার দিকে ছেলের মৃত্যুর খবর মা রহিমা বেগমকে (৯৪) জানানো হয়। এ খবর শোনার পরপরই হৃদক্রিয়া বন্ধ হয়ে তিনি মারা যান।

রহিমা বেগমের আরেক সন্তান ইঞ্জিনিয়ার আজিজুল ইসলাম বাদল জানান, তার বড় ভাই ড. মো. আনোয়ারুল ইসলাম ব্রেইন স্ট্রোক করার পর চিকিৎসাধীন অবস্থায় শুক্রবার দুপুরে মারা যান।

আমার বৃদ্ধা মা এ খবরটি শুনে অসুস্থ হয়ে পরবেন তাই তাৎক্ষণিকভাবে তাকে জানানো হয়নি। এরপর সকালে যখন ফরিদপুরে দাফনের জন্য আমার ভাইয়ের মরদেহ নিয়ে আসা হচ্ছিল তখন খবরটি জানানো হলে আমার মা অসুস্থ হয়ে মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়েন।

ডা. আনোয়ারুল ইসলাম ফরিদপুর প্রেস ক্লাবের সাবেক সভাপতি মরহুম আব্দুল আলী শিকদারের মেয়ে জামাতা ছিলেন। তিনি ২০২০ সালের ৩০ জুন রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের ফার্মেসি বিভাগের ডিন পদ থেকে অবসর নেন।

Author: admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *