বুধবার, ০৫ অগাস্ট ২০২০, ০৫:২৫ পূর্বাহ্ন

প্রিয়তীর একদিনের প্রেম: এমদাদ ইমন

প্রিয়তীর একদিনের প্রেম: এমদাদ ইমন

agooan - webmag - love story - story - আগুয়ান - ওয়েবম্যাগ - প্রেমের গল্প
আগুয়ান - ওয়েবম্যাগ - প্রেমের গল্প

আপনি চান কিংবা না চান, কারণ কিংবা অকারণে মন খারাপ আপনাকে ঘিরে ধরবেই। জীবনে চড়াই-উতরাই থাকবেই নয়তো জীবনের মর্ম বৃথা।
যাকগে’ কথায় আসি, দেশ ছেড়েছি বছর হতে চললো, ঘুরতে এসে থেকে যেতে ইচ্ছে হলো তাই আর দেশে যাচ্ছি না।
স্বপ্ন-ভাঙা,পথভুলা, মনভুলা, সফল-ব্যর্থ সবগুলো বিশেষণই আমার সাথে ব্যাপকভাবে যায়।
জীবনকে জানতে এবং মানতে অনেক পথ পাড়ি দিয়েছি শূন্য থেকে শূণ্যেও পৌঁছেছি। চলার পথে বারবার মায়ায় পড়েছি, বারবার থমকে গিয়েছি, প্রেমে পড়েছি ভালবেসেছি কিন্তু পৃথিবী বড্ড নির্দয়।

আমি সজল, প্রিয়তী’কে চেনেন?
আরে চিনবেনই বা কেমন করে?
আমিই তো চিনতে পারিনি,তবে ভালবেসেছি প্রচন্ড ভালবেসেছি। কতক্ষণের জন্য মনে হয়েছিলো জীবন সুন্দর আবার গোছালো জীবনে ফিরে তাকানো যায়।
স্বপ্ন বুননের ভূত চেপেছিল। অনেক কিছুই ভাবা শেষ মানে ভেবেই মনের ভেতর উত্তরের সমীর শরতের কাশফুলের মত প্রফুল্লিত হয়েছিল!
কিন্তু সে আশার গুঁড়ে বালি।
বর্তমান পৃথিবীর অবস্থা কার না জানা?
সবাই জানে।
চারিদিকে শুধু হতাশার আর্তচিৎকার মানুষে-মানুষে বিভেদ।
অনলাইন অফলাইন শুধু হাতাশা আর হতাশা দুঃসংবাদ আর দুঃসংবাদ।
যাইহোক এভাবেই দিন যাচ্ছে আমিও তিক্ত বিরক্ত কারণ এভাবে আর কত?

হুট করে ফেসবুকের চ্যাটলিস্টে চমৎকার একজনের সাথে পরিচয়!
তাঁর একটি ছবিতে তাঁর দুটি চোখ আমায় এত আকৃষ্ট করেছিলো যে পৃথিবীর সব সৌন্দর্য মনে হয় আমিই দেখে নিয়েছি।
তাঁর চোখের প্রেমে পড়ে এই মাঝবয়সে এসেও ঘর বাঁধতে ইচ্ছে হলো প্রেমে পড়তে সাধ জাগলো প্রত্যাশা শুরু হলো ঐ দুটো চোখের অক্লান্ত আমৃত্যু দর্শক হয়ে থাকতে।
পরিচয় জানা হলো-সে কিনা আমার অঞ্চলের’ই!
আমি থ হয়ে রইলাম-ঢাকার একটা পাবলিক ভার্সিটিতে পড়ে সে।
ওর লিখা অনেক চমৎকার ছিল আমায় অনেক আকৃষ্ট করেছিলো।
চমৎকার ভাবে গুছিয়ে কথা বলে-
তারসাথে একটা দিন এত কথা হয়েছে যে আমি আর মরতে চাইনা বলে প্রার্থনা শুরু করলাম।
কেমন জানি খুব বেশি ভালবেসে ফেললাম।
আমি আবার কিছুই চেপে রাখিনা তাঁকে প্রস্তাব করলাম। বললাম চলো প্রেম করি, সেও রাজি হলো আমাদের অনেক পরিকল্পনা হলো।
অনেক কথা হলো অনেক জানাশোনা হলো-
আমি কিছুতেই বোঝাতে পারব না আমাকে কোনো এক অজানা আনন্দ এত বেশি গ্রাস করে ফেলেছিলো কোনো দুঃখই রইলো না।
এই প্রথম আমার মনে হয়েছিলো আমার যা চাই বা এই জীবনে যা খুঁজেছি তা বোধহয় শুধুমাত্র এই দুটো চোখ’ই আর কিছুই না।
যাইহোক, কথা বলার শেষে সে বললো সন্ধ্যায় তাঁর কোনো এক বান্ধবী এসেছে কাল তাকে সময় দিবে তারমানে আগামীকাল আমায় আর সময় দিচ্ছে না।
তবুও সুখের দরিয়াতে ঢেউ থামেনি-
আমি প্রফুল্ল বদনে নিশ্চিত মনে ঘুমালাম পরদিন গেলো এর পরদিনও যায় চিন্তায় আমার হাত পা ছেড়ে দিয়েছি কিন্তু তাকে আর অনলাইনে পাই না-
অনেকেই আসে সে আসে না।
বান্ধবীকে সময় দিতে গিয়ে আমাকে ভুলে গেল?
কেমন করে যেনো লাপাত্তা হয়ে গেল।
একদিনে এভাবে প্রেম হয়?
এতটা দাগ কাটতে পারে হৃদয়ে?
আমি অপেক্ষায় থাকি প্রিয়তী আসবে বলে কিন্তু সে আসে না।

তবে কি সেও মরিচীকার পেছনে ছুটছে? তবে কি প্রেমিকের বিন্দুমাত্রও দাম নেই?
মূল্য নেই সঠিক ভালবাসার?
নাকি সবাই কেবল মরিচীকার পেছনেই ছুটে এই পাপের সাম্রাজ্যের মধ্যে শুদ্ধ প্রেমিক হতে চেয়ে জীবনের মাঝপথের পথিক কিন্তু প্রেম পেলাম কোথায়?
শেল পেয়েছি শুধুই শেল-
তবুও ভালবেসে যাই আমি প্রেমিক তাই।
প্রিয়তী তুমি কোথায় আছো?
যেখানেই থাকো ভাল থেকো….
আর হ্যাঁ আমার শুদ্ধ প্রেমের ভুবনে তোমার চোখের বিনে টিকেটের নীরব দর্শক বানাতে চাইলে অবশ্যই তোমায় স্বাগতম।
আমি আমৃত্যু দর্শক হয়ে থাকবো ঠিক তোমার ঐ দুটি হৃদয় বধ করা নয়নে-
সারাজীবন মিশে থাকবো শয়নেস্বপনে।
ফিরে এসো প্রিয়তী, ফিরে এসো।
ভালবাসি প্রিয়তী অনেক বেশিই ভালবাসি।

শেয়ার করুন...




© All rights reserved
Design & Developed BY ThemesBazar.Com